সর্বশেষ আপডেট

শচীন দাস(সম্পাদক,টোনাটুনির কিচিরমিচির শাখা)ঃ

সেচ্ছাসেবকরাই পারে অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে।
একজন সেচ্ছাসেবক কেন বিনা স্বার্থে কাজ করে জানেন?
আসল সেচ্ছাসেবকরা কখনোই কোনো লোভ বা স্বার্থের জন্য মানব সেবায় বা সমাজ কিংবা রাষ্ট্রের সেবায় নিয়োজিত হোন না।তারা চায় শান্তি।আপনি কি জানেন একজন মানুষকে সাহায্য করার পর কেমন আনন্দ অনুভব হয়?
সেটা সত্যিকারের সেচ্ছাসেবকরাই জানে।তারা কাউকে সাহায্যর পর মানব মুখে যে হাসিটা ফুটিয়ে তোলে সেটার জন্যই তারা বিনা স্বার্থে কাজ করে যায়।

আচ্ছা আপনারা অনেক সময় দেখেন সেচ্ছাসেবকরা ময়লার নর্দমা,ড্রেনে নেমেও কাজ করে।তারা কেন করে?তারা কি অর্থ কিংবা কোন কিছুর লোভে করে?
না,তারা কোন কিছুর লোভ বা আশায় করে না।তারা করে দেশের জন্য,সমাজের জন্য,মানবের জন্য।
অনেক সময় এমনও হয় যে সেচ্ছাসেবকরা নিজে না খেয়ে অন্য অসহায় মানুষকে খাবারের সুযোগ করে দিচ্ছে।তারা এমন কেন করে?ওইযে মানুষের মুখে হাসি।

তাদের এমন কাজে অনেকে তাদের পাগল বলেও আখ্যায়িত করে।বলে,তারা ড্রেনে নেমে কাজ করছে নিজের শরীর ময়লা করে,নিজে না খেয়ে অন্যকে খাওয়াচ্ছে,পাগল না তোহ কি?

হ্যা পরিশেষে বলি, তারা পাগল,তারা হলো দেশের জন্য পাগল,মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য পাগল।